ঢাকা, বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১

বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করবে নতুন বছর

:: শাহ মো. সাইফুল ইসলাম || প্রকাশ: ২০২১-০১-০৩ ১০:১৫:১০

বিদায়ী বছর ২০২০ সালে করোনাভাইরাস মহামারিতে বাজার যে পরিমান খারাপ হওয়ার কথা ছিলো ঠিক সে পরিমান খারাপ হয়নি। তবে পৃথিবীর অন্যান্য পুঁজিবাজারগুলোতে করোনার কারণে বন্ধ থাকার পরে যে ভাবে সূচকের পাশাপাশি বাজার ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে; আমাদের পুঁজিবাজারে তা খুব বেশি লক্ষ করা যায়নি। তবে ক্রমান্বয়ে আন্তর্জাতিক পুঁজিবাজারের মতো সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যা বছরের শেষ দিকে এসে লক্ষ করা গেছে। তারই ধারাবাহিকতায় নতুন বছরেও দেশের পুঁজিবাজার তার ধারাবাহিকতা রক্ষা করে সামনের দিকে এগিয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করবে। বিশ্লেষক ও বাজার সংশ্লিষ্টরা এমনটাই আশা করছেন।

তারা বলছেন, নতুন বছরে পুঁজিবাজার আরও বেশি সমৃদ্ধ হবে। আরও বেশি বিনিয়োগকারী আসবে। নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে যেভাবে দায়িত্ব পালন করেছে তা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে পুঁজিবাজারে আরও বিনিয়োগ আসবে।

আরও পড়ুন

আগ্রহ নেই ডিএসই’র মোবাইল অ্যাপে!

শর্ত আরোপ: তবুও বাড়ছে সঞ্চয়পত্র বিক্রি

আকর্ষণীয় নয় আর্থিক অবস্থা, তবুও বিনিয়োগকারীদের চোখ রবিতে

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মহামারি করোনার কারণে বিশ্ব অর্থনীর সাথে দেশের অর্থনীতিতেও ধস নামে। বিশ্বের বিভিন্ন পুঁজিবাজারের মতো দেশের দুই পুঁজিবাজারও বন্ধ হয়। কিন্তু করোনার বন্ধ কাটিয়ে ‘ম্যাজিক’ দেখাতে শুরু করে বাজার। লেনদেনসহ সব ধরনের সূচকই বেড়েছে। এক কথায় গত ছয় মাসে চমৎকার উত্থান দেখিয়েছে পুঁজিবাজার।

আর বাজারের এই উত্থানে পুঁজিবাজার নিয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে অনেক প্রত্যাশা লক্ষ করা যাচ্ছে। বিনিয়োগকারীরা আশা করছে বিএসইসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে পুঁজিবাজার অনেক দূর এগিয়ে যাবে। ক্ষতিগ্রস্থ বিনিয়োগকারীরা তাদের হারানো পুঁজি ফিরিয়ে পাবে। কমিশন চেয়ারম্যানের নানা সময়ের বক্তব্যে আরও বেশি অনুপ্রাণিত হয়েছে বিনিয়োগকারীরা।

সম্প্রতি বিএসইসির চেয়ারম্যান প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেছেন, আগামী ছয় মাসের মধ্যে টেকসই হবে পুঁজিবাজার। বিএসইসি ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের নিরাপত্তা দেবে। অনেক দুষ্ট শক্তি পুঁজিবাজার নিয়ে নানা সময় খেলা করেছে। খেলার সময় শেষ হয়ে আসছে। ওই সময় চাইলেও আর তারা খেলতে পারবে না।

আরও পড়ুন

পুঁজিবাজারে আস্থা পাচ্ছে বিনিয়োগকারীরা

পুঁজিবাজার সম্প্রসারণে ফের বিএসইসির নতুন সিদ্ধান্ত

গুজব বন্ধে কঠোর বিএসইসি

তার এই বক্তব্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে আরও বেশি আস্থা তৈরি হয়েছে। যেহেতু পুঁজিবাজার ছয় মাসের মধ্যে একটা ভালো অবস্থানে ফিরে যাবে সেহেতু সাধারণ বিনিয়োগকারীরা তাদের হারানো পুঁজি ফিরে পেতে স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি বর্তমান কমিশনের প্রতি বিনিয়োগকারীদের মনে অনেক বেশি প্রত্যাশা তৈরি হয়েছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা এ ব্যাপারে বেশ আশাবাদী। তারাও কমিশনের উপর আস্থা রাখতে চান। বিষয়টি নিয়ে কথা হয় এএফসি ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী মাহবুব এইচ মজুমদারের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের পুঁজিবাজারে করোনার পরে সূচক বেড়েছে প্রায় ডাবল। সে হিসেবে আমাদের পুঁজিবাজারে সূচকের তেমন উত্থান হয়নি। তবে নতুন বছরে দেশের পুঁজিবাজার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের ভূমিকা পালন করবে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান কমিশনের বিভিন্ন কঠোর পদক্ষেপের কারণে বাজার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে সে আশা লক্ষ করা যাচ্ছে, কমিশনের সময়োপযোগী পদক্ষেপে নতুন বছরে বাজার আরও অনেক দূর এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করি। আন্তর্জাতিক বাজারগুলোর সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের পুঁজিবাজার একটি আন্তর্জাতিক বাজারে রূপ নিবে বলেও আমি বিশ্বাস করি।

আরও পড়ুন

এক মাসে পুঁজিবাজারে এসেছে এক লাখ ৪৪ হাজার বিনিয়োগকারী

পিএলএফএস ইনভেস্টমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আব্দুল মুক্তাদির বলেন বলেন, বিদায়ী বছর দেশের পুঁজিবাজার তিনটি ধাপে অতিক্রম করেছে। এর মধ্যে জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত খুবই খারাপ গিয়েছে। তারপরে করোনার কারণে বাজার বন্ধ ছিলো কিছুদিন। তারপর নতুন কমিশনের নেতৃত্বে জুলাই থেকে পুঁজিবাজার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মনে আস্থা তৈরি করতে শুরু করে। পর্যায়ক্রমে পুঁজিবাজার ভালো হতে শুরু করে। অবশেষে বিনিয়োগকারীদের মনে আস্থা যুগিয়ে খুবই ভালোভাবে বছর শেষ করেছে পুঁজিবাজার। অর্থাৎ খুবই চমৎকারভাবে বছর শেষ করেছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মনে আরও বেশি আস্থা তৈরি করে পুঁজিবাজার নতুন বছরে প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের নেতৃত্বে আরও বেশি এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, নতুন কমিশনের নেতৃত্বে পুঁজিবাজার ভালোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শিবলী রুবাইয়াতত-উল ইসলামের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থা তৈরি হয়েছে। নতুন বছর বিএসইসির চেয়ারম্যান বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ সুরক্ষার জন্য আরও বেশি কঠোর হয়ে বাজারকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।